মায়ের জন্য চাই হ্যান্ডসাম জীবন সঙ্গী!সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজ্ঞাপন দেওয়ায় মেয়ে পেলো এমন জবাব

0
2

আমরা একবিংশ শতাব্দীতে বেঁচে আছি এবং আমরা সবাই ‘আধুনিক’ হওয়ার কথা বলি তবে এখনও তালাকপ্রাপ্ত বা বিধবা স্ত্রীলোকদের দিকে তাকাতে হয় এবং তারা কে তাদের বিচার করে।  মহিলাদের বৈবাহিক অবস্থা নিয়ে ঝলক ও মন্তব্যে যে আচরণ করতে হবে তা ভীষণ হতাশাব্যঞ্জক।

সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মকে নানা ভাবে ব্যবহার করেন মানুষ। তবে এই যুবতী যে ভাবে করলেন তাতে নেটিজেনদের হৃদয় জয় করে নিলেন তিনি। এই যুবতী তাঁর মায়ের জন্য একজন ‘সঙ্গী’ খুঁজছেন। কী কী বৈশিষ্ট্য থাকা দরকার তা-ও লিখে দিয়েছেন। আর তাঁর এই পোস্টের পর প্রচুর মানুষ তাতে কমেন্ট করেছেন।

Ad

আস্থা বর্মা নামে ওই টুইটার ব্যবহারকারী তাঁর মায়ের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। সঙ্গে লিখেছেন, তাঁর মায়ের জন্য একজন সুন্দর মানুষ খুঁজছেন। যাঁর বয়স হবে ৫০ বছর। যিনি শাকাহারী হবেন, মদ্য পান যেন না করেন এবং প্রতিষ্ঠিত।

তবে এমন কিছু লোক আছেন যারা এই বিষয়গুলিকে উপেক্ষা করেন এবং সামাজিক রীতিনীতিগুলি মেনে চলতে অস্বীকার করেন যা আক্ষরিক অর্থে কোনও অর্থ দেয় না।  তারা ‘রীতিনীতি’ মেনে চলার চেয়ে খুশি হতে পছন্দ করে।

সম্প্রতি, আস্থা বর্মা নামে ওই টুইটার ব্যবহারকারী তাঁর মায়ের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। সঙ্গে লিখেছেন, তাঁর মায়ের জন্য একজন সুন্দর মানুষ খুঁজছেন। যাঁর বয়স হবে ৫০ বছর। যিনি শাকাহারী হবেন, মদ্য পান যেন না করেন এবং প্রতিষ্ঠিত।

এটির একমাত্র হৃদয়গ্রহীতা নয়, এটি একটি নির্দিষ্ট বয়সী মানুষ হিসাবে উপস্থিত রয়েছে  আমরা সোশ্যাল মিডিয়া সাইটের অংশীদারিদের সংস্থাগুলির কথা বলছি, তবে ক্যান্টারের মায়ের জন্য একজন লোককে দেওয়া হয়নি

  টুইটার থেকেই জানা যাচ্ছে, আস্থা বর্মা আইনের ছাত্রী। তাঁর এই টুইটটি পোস্ট হয়েছে, ৩১ অক্টোবর সকাল ৭টা ৪২ মিনিটে। প্রথম ১৭ ঘণ্টাতেই পোস্টটি চার হাজারের বেশি রিটুইট হয়েছে। লাইক পড়ে প্রায় ১৮ হাজার। আর প্রায় তিন হাজার কমেন্ট পড়েছে।

পোস্টের মজাদার জবাবও পেয়েছেন আস্থা। কেউ কেউ যেমন, সঙ্গী হিসেবে রাহুল গান্ধী, নরেন্দ্র মোদী এমনকী ডোনাল্ড ট্রাম্পের নামও উল্লেখ করেছেন। কেউ আবার ‘বয়স শর্ত’ কমানোর অনুরোধ জানিয়েছেন।

আবার অনেকেই বলেছেন, তারা পাত্র খুঁজতে কোনো ঘটক বা বিবাহ-এজেন্সির কাছে যাননি কেন?

জবাবে মেয়েটি জানিয়েছেন, তারা গিয়েছিলেন। এমনকি এর জন্য টিন্ডারও ব্যবহার করা হয়ে গেছে। তবে, তাতে আশানুরূপ ফল মেলেনি। তাই, বাধ্য হয়েই টুইটারের শরণাপন্ন হতে হয়েছে।

ad

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here